কিভাবে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো যায়?

আমাদের সকলের কম-বেশি প্রতিরোধ ক্ষমতা রয়েছে। যা বয়সের সাথে সাথে হ্রাস পেতে থাকে। বয়স বাড়ার সাথে সাথে আমাদের দেহগুলি অপুষ্টিতে পরিণত হয়। যার কারণে বয়স্ক ব্যক্তিরা এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। তবে, শিশু এবং তরুণদের মাঝে মাঝে এই রোগ প্রতিরোধ করার ক্ষমতা কম থাকে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা স্বাস্থ্যের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। আপনার যদি এই রোগ প্রতিরোধ করার মতো শক্তি না থাকে তবে আপনি কোনও রোগে ভুগতে পারেন। ভাইরাল ব্যাকটিরিয়া সংক্রমণ তখনও বেশি দেখা যায়। যখন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাতে ঘাটতি থাকে, লোকেরা সারা বছর এই রোগে ভোগেন। পর্যাপ্ত শক্তির অভাব দৈনিক কর্মকাণ্ডেও হস্তক্ষেপ করতে পারে। বিভিন্ন কারণে আমাদের দেহের শক্তি বা রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা হ্রাস পেতে পারে। তারপরে শরীরে বিভিন্ন ঘাটতি দেখা দেয়। তবে, আপনি যদি নিজের খাদ্যাভাস পরিবর্তন করেন এবং শারীরিক কাজ করেন তবে এই ঘাটতি পূরণ হতে পারে। তবে প্রথমে আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কেন দুর্বল হয় তা জানতে হবে। আসুন জেনে নেই কেন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাতে ঘাটতি রয়েছে!

অনাক্রম্যতা হ্রাস এবং বাড়ানোর উপায়
কেন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা হ্রাস করা হয়?


1) অতিরিক্ত চিনি বা মিষ্টি খাবারগুলি রোগ প্রতিরোধের আপনার ক্ষমতা খুব দ্রুত হ্রাস করে। আউটডোর সফট ড্রিঙ্কস, টমেটো সস ইত্যাদিতে প্রচুর পরিমাণে চিনি থাকে। সুতরাং এগুলি খাদ্য তালিকা থেকে সরানো উচিত।

2) অতিরিক্ত চাপ বা উদ্বেগ আপনার রোগকে খুব খারাপভাবে প্রতিরোধ করার ক্ষমতা কেড়ে নেয়। তাই অতিরিক্ত টান দিয়ে দেহের ক্ষতি করবেন না।

3) অতিরিক্ত কাজ কখনও স্বাস্থ্যের পক্ষে ভাল হয় না। অতিরিক্ত কাজের চাপ আপনাকে আবেগগতভাবে ভেঙে দেয়। ফলস্বরূপ, আপনি শীঘ্রই রোগ প্রতিরোধ করার ক্ষমতা হারাবেন।

কীভাবে প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো যায়?


আমাদের দেহের রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা হ্রাস করার আরও অনেক কারণ রয়েছে। কারণ যাই হোক না কেন, কয়েকটি ছোট পরিবর্তনগুলি আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য যথেষ্ট হবে। সুতরাং আসুন আমরা আমাদের প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য কী করতে পারি তা সন্ধান করি।

শুরু হয়েছে ভ্রমণের মরসুম। এই মৌসুমে শরীরকে সুস্থ রাখতে প্রয়োজনীয় পুষ্টি প্রয়োজন। ভ্রমণের চাপ এবং শরীরে পুষ্টি হ্রাসের কারণে অনেকে আবার ভ্রমণে অনীহা প্রকাশ করে। তাই চলতি মরসুমের দিক থেকে শরীরকে সুস্থ রাখা জরুরি। রোগের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য শরীরকে প্রস্তুত করতে আপনি এই মৌসুমে বেশ কয়েকটি খাবার খেতে পারেন। প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় কী করে তা একবার দেখুন:

ডিম


প্রোটিন: প্রোটিন শরীরের অভ্যন্তরীণ ক্ষমতা বাড়ায় এবং রোগের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের শক্তি সরবরাহ করে। এই মরসুমে আপনার দেহ সুস্থ রাখতে উচ্চমানের প্রোটিনযুক্ত খাবার খাওয়া দরকার। ডিম, মাছ, মুরগী, ডাল থেকে প্রোটিন পাওয়া যায়। তবে লাল মাংস এড়িয়ে চলুন। লাল মাংসে ভাল প্রোটিনের সুবিধা পাওয়া যায় না। এই ডোজ প্রোটিন শরীরের ওজন প্রতি কেজি এক গ্রাম। অর্থাৎ, যদি কোনও ব্যক্তির ওজন 6 কেজি হয় তবে তার দৈনিক 8 থেকে 80 গ্রাম প্রোটিন প্রয়োজন।


লেবু

ভিটামিন সি: শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ভিটামিন সি অত্যন্ত কার্যকর। ভিটামিন সি মানবদেহের জন্য প্রয়োজনীয় একটি মাইক্রোনিউট্রিয়েন্ট। ভিটামিন সি ত্বক, দাঁত এবং চুল সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। এছাড়াও এটি অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট হিসাবে কাজ করে যা রোগের প্রতি শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় এবং হৃদরোগ এবং ক্যান্সার সহ বিভিন্ন রোগের ঝুঁকি হ্রাস করে। এই ভিটামিনটি প্রচুর পরিমাণে পরিচিত ফল এবং বিভিন্ন শাকসব্জ যেমন আমের, লেবু, কমলা, পেয়ারা, আঙ্গুর, আম, পেয়ারা, পেঁপে, সবুজ মরিচ ইত্যাদিতে পাওয়া যায় তবে আমাদের দেহ ভিটামিন সি সংরক্ষণ করতে পারে না, তাই এটি গ্রহণ করা প্রয়োজন প্রতিদিন প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষদের দৈনিক 90 মিলিগ্রাম এবং মহিলাদের 60 মিলিগ্রাম ভিটামিন সি প্রয়োজন


ভিটামিন বি 12 সমৃদ্ধ খাবার

ভিটামিন বি 12: ভিটামিন বি 12 শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে এবং রোগ থেকে দ্রুত পুনরুদ্ধারে খুব কার্যকর। ভিটামিন বি 12 বিভিন্ন দুগ্ধজাতীয় খাবার এবং ডিমগুলিতে পাওয়া যায়। তবে, নিরামিষাশীরা যাঁরা শরীরে ভিটামিন বি 12 এর অভাব পূরণ করার জন্য চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী পরিপূরক গ্রহণ করতে পারেন।

শিম


দস্তা: শরীরে দস্তার ঘাটতি সাদা রক্ত ​​কোষের ক্ষমতা হ্রাস করতে পারে। ফলস্বরূপ, রোগের প্রতি দেহের প্রতিরোধ ক্ষমতা হ্রাস পায়। বাদাম, শিম, দুগ্ধজাত খাবারে জিঙ্ক বেশি inc মনে রাখবেন, বাচ্চাদের ক্ষেত্রে জিংকের পরিমাণ কম, ঝুঁকি তত বেশি।

AmrTips.COM

AmrTips.Comhttps://amrtips.com
"আমার টিপস ডট কম" ওয়েবসাইটে আপনাকে স্বাগতম। সকল টেকনিক্যাল সমস্যার করার জন্যই আমাদের এই প্লাটফর্ম তৈরি করা। প্রতিনিয়ত আমরা এখানে সকল টেকনিক্যাল সমস্যার সমাধান এই কাজ করে থাকি। টেকনিক্যাল সমস্যার সমাধান পেতে প্রতিদিন নিয়মিত ভিজিট করুন আমাদের অনলাইন প্লাটফর্ম "আমার টিপস ডট কম"

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular